actress1456769867

বলিউডের সেরা আইটেম কন্যারা

অনেক আগে থেকে বলিউড সিনেমায় আইটেম গানের যাত্রা শুরু। তবে বর্তমানে অধিকাংশ সিনেমাতেই এটি অনিবার্য বিষয় হয়ে পড়েছে। কারণ সিনেমা মুক্তির পূর্বেই প্রচার এবং প্রসারের জন্য আইটেম গান একটি প্রবল নিয়ামক হিসেবে কাজ করছে।

 

শুধু তাই নয়, আইটেম গানে রাখা হয় সিনেমার অভিনয়শিল্পীর বাইরের কাউকে। মূলত আলাদা কোন অভিনেত্রীকে দেখা যায় আইটেম গানে। তবে অভিনয় নয়, শুধু আইটেম গানের মাধ্যমেই অনেক নতুন শিল্পী দর্শকদের মন জয় করেছেন। বিগত বছরগুলোর পরিসংখ্যানে আইটেম গানে সবচেয়ে বেশি দর্শকদের মন রক্ষা করেছেন যে অভিনয়শিল্পীরা, তাদেরকে নিয়ে সাজানো হয়েছে এই প্রতিবেদন।

 

মালাইকা আরোরা খান : শুধু আইটেম গানে কাজ করেই নিজেকে অন্য জায়গায় নিয়ে গেছেন মালাইকা। বলিউডে আইটেম গানের আদর্শও বলা হয় তাকে। তাইতো আইটেম গানের কথা আসতেই চোখে পড়ে মুন্নি বদনাম হুয়ি কিংবা ছাইয়া ছাইয়া গান দুইটি। তবে মালাইকা শুধু যে আইটেম কন্যা হিসেবেই পারদর্শীতা দেখিয়েছেন তা নয়। একাধিক সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। মালাইকার বলিউড পা  রাখেন ১৯৯৮ সালে ‘দিল সে’ সিনেমার মাধ্যমে। তবে অনেক সিনেমাতেই তাকে আইটেমকন্যা হিসেবে দেখা গিয়েছে। আইটেমকন্যা হিসেবেই তার সর্বাধিক সাফল্য।

 

ক্যাটরিনা কাইফ : শুধু ‘শিলা কি জাওানি’ গানের জন্যই সে বছর সুপার ডুপার হিট হয়েছিল ‘তিস মার খান’। ক্যাটরিনাও পেয়েছিলেন জনপ্রিয়তা। এরপর নিজেকে আবারো প্রমাণ করেছিলেন ‘চিকনি চামেলি’ গানে আইটেম কন্যার ভুমিকায় হাজির হয়ে। তবে তিনি শুধু আইটেম গানেই নয়। নৃত্যশিল্পী হিসেবে অন্যগানেও দুর্দান্ত পারদর্শিতার প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। ধুম থ্রি সিনেমায় ‘কামলি’ গানে সে পরিচয়ই মিলেছে। বর্তমানে ক্যাটরিনা ‘জাজ্ঞা জাসোস’ এবং ‘বার বার দেখো’ সিনেমা দুইটির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন এ অভিনেত্রী।

 

কারিনা কাপুর : বর্তমান সময়ে বলিউডের অন্যতম প্রধান অভিনেত্রী কারিনা কাপুর। তিনি শুধু অভিনেত্রী হিসেবেই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন তা নয়, আইটেম কন্যা হিসেবেও নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছেন। তারই প্রমাণ মিলেছে ‘ফেভিকল’ গানে। সে বছর সবচেয়ে বেশি দর্শকপ্রিয়তা পায় গানটি। নাচের নিপুণ আঁচড়ে খুব অল্প সময়েই আইটেম কন্যা হিসেবে দর্শকদের মনে আলাদা স্থান করে নিয়েছেন তিনি। কারিনা কাপুর বলিউডে পা রাখেন ২০০০ সালে ‘রিফুজি’ সিনেমার মাধ্যমে। তবে মাত্র ১৬ বছর বয়সেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ একাধিক পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। চলতি বছর কারিনা অভিনীত ‘কি অ্যান্ড কা’ ও ‘উড়টা পাঞ্জাব’ সিনেমা দুইটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

 

মল্লিকা সেরওয়াত : মল্লিকা  মডেল থেকে অভিনেত্রী হিসেবে বলিউডের খাতায় পুরাপুরি নাম লেখান ২০০৩ সালে ‘খাওয়াইশ’ সিনেমার মাধ্যমে। তবে ‘মার্ডার’, ‘আব কা সুরুর’ ‘ওয়েলকাম’  ‘হিস’ এবং ‘ডাবল ধামাল’ এই সিনেমা ব্যাতীত কোন সিনেমাতেই তেমন সুবিধা করতে পারেননি মল্লিকা। কিন্তু আইটেম কন্যা হিসেবে তিনি অনবদ্য। নিজেকে তুলে ধরেছেন ভিন্নভাবে। ডার্টি পলিটিক্স সিনেমার ‘ঘাঘারা’, গুরু সিনেমার ‘মায়া মায়া’, তেজ সিনেমার ‘লায়লা’ প্রভৃতি গানেই তিনি সে পরিচয় দিয়েছেন। তবে সবকিছু ছাপিয়ে মল্লিকার ডাবল ধামাল সিনেমার ‘জাল্লে বি বায়ি’ গানটি সবচেয়ে বেশি দর্শকনন্দিত হয়েছিল।

 

চিত্রঙ্গদা সিং : আইটেম কন্যা হিসেবে চিত্রঙ্গদা সবচেয়ে নাম কামিয়েছিলেন ২০১২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘জোকার’ সিনেমার ‘কাফিরানা’ গানে নেচে। সিনেমাটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন- অক্ষয় কুমার এবং সোনাক্ষি সিনহা। শুধু আইটেম কন্যাই নয়, অভিনেত্রী হিসেবেও বলিপাড়ায় বেশ নাম রয়েছে চিত্রঙ্গদার। ২০০৩ সালে ‘হাজারু খাওয়াইশে এইছে’ সিনেমার মাধ্যমে তার বলিউডে অভিষেক হয়। এ পর্যন্ত ছয়টি সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি বেশ কিছু সিনেমার বিশেষ চরিত্রে দেখা যায় ৩৯ বছর বয়সি এই অভিনেত্রীকে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *